প্রতিদিন ৩ টি করে ডিম খেলে আপনার শরীরে কি কি পরিবর্তন ঘটতে পারে!

0
171

আজকাল অনেক মানুষ খাবার সম্পর্কে অত্যাধিক সচেতন হয়ে তাদের খাদ্যতালিকা থেকে ডিম, মাছ, ও বিভিন্ন ডেয়ারি প্রোডাক্ট গুলো বাদ দিয়ে দিয়েছেন। তারা শুধুমাত্র নিরামিষ আহার গ্রহন করছেন। কিন্তু তারা একটা কথা খেয়াল রাখেন নি যে তারা এর ফলে তাদের খাদ্যতালিকা থেকে কতোগুলি জরুরি জিনিস বাদ দিয়ে ফেলেছেন।







সুষম ডায়েট চার্টের একটি অন্যতম প্রধান উপাদান হল ডিম।

যদি আপনি সকালের খাবারে রোজ ৩টি করে ডিম খান তবে এটি শুধুমাত্র আপনার শরীর গঠনেই সাহায্য করবে না, তার সাথে কয়েকটি বড় বড় রোগ থেকেও আপনার শরীর কে সুরক্ষা করেবে। ডিম হল একটি আশ্চর্যজনক খাবার।

ডিমের নানান গুন জানতে নিচে পড়ুন…







কোলেস্টেরল লেভেল নিয়ে কনো চিন্তা করার দরকার নেই –

ডিমে মাত্র ১৮০-১৮৬ মিলিগ্রাম কোলেস্টেরল থাকে যেখানে আমাদের লিভার রোজ ১০০০-২০০০ মিলিগ্রাম তৈরি করে। ডিম আপনার শরীর থেকে ক্ষতিকারক কোলেস্টেরল কে রিপ্লেস করে।

মজবুত হাড় ও মজবুত দাঁত –

ডিমে আছে ভিটামিন-D ও ক্যালসিয়াম। ভিটামিন-D আমাদের শরীরে ক্যালসিয়াম ও ফসফরাস শোষণ কে নিয়ন্ত্রন করে, যা মজবুত হাড় ও মজবুত দাঁত গঠন করে।







ডাক্তাররা রোজ ডিম খাবার পরামর্শ দেন –

এগুলো ছাড়াও ডিম আমদের পেশি গঠনে সাহায্য করে। ২টি ডিমে যা প্রোটিন তা মাংসের সমান। তাই ডিম মাংসের মতই প্রোটিন সরবরাহ করে ফ্যাট না বাড়িয়ে।

শরীরের জন্য প্রয়োজনীয় বিভিন্ন পুষ্টি ডিমে রয়েছে –

ডিমে দয়েছে riboflavin, folate, iron, phosphorus, selenium, magnesium, vitamin A, E, and B6.

ডিম ওজন কমাতেও সাহায্য করে –







ডিম ভিটামিন ও মিনারেল সম্পন্ন যা আপনার শরীর থেকে অতিরিক্ত ওজন কমাতেও সাহায্য করে।

স্বাস্থ্যসন্মত ব্রেকফাস্ট হিসেবেও ডিমের জুড়ি মেলা ভার –

আমেরিকার এক সংস্থার মতে সকালে রোজ ডিম খাওয়া হলে তা সারাদিনের খাবার কে সঠিক পথে পাচিত হতে সাহায্য করে।

এছাড়া ডিম আমাদের দৃষ্টিশক্তি বাড়াতে সাহায্য করে –

ডিমের কুসুমে প্রচুর পরিমাণে Lutein এবং Zeaxanthin থাকে যা ছানি এবং ম্যাকুলার ডিজেয়ারের ঝুঁকি হ্রাস করে। ডিমে আতিরিক্ত পরিমাণে ভিটামিন-A থাকে যা রাতকানা রোগ প্রতিরোধ করে।

ডিমে প্রচুর প্রোটিন থাকে –







ওজন হ্রাস, পেশী গঠন, উচ্চ রক্তচাপ এবং হাড়ের স্বাস্থ্য নিয়ন্ত্রণের জন্য প্রোটিন খুবই প্রয়োজনীয়। একটি বড় সাইজের ডিমে ৬গ্রাম প্রোটিন থাকে…

ডিম হার্টের রোগ প্রতিরোধক হিসেওবেও কাজ করে –







আপনি আপনার ব্রেকফাস্টে ডিম খেয়ে একটা পরিক্ষাও করতে পারেন। যে আপনার শরীরে সত্যি কোনও পরিবর্তন আসছে কি না…