এই ঈদেও পাঁচ ছবি!

0
41

সপ্তাহ দুই পরেই ঈদ। এবারের ঈদেও বিনোদনের বড় মাধ্যম হয়ে উঠবে বাংলা সিনেমা। ঈদের তালিকায় থাকা সব ছবির শুটিং শেষ। শেষ মুহূর্তে চলছে মুক্তির প্রস্তুতি। তাই চলচ্চিত্রপাড়ায় এখন ঈদের আমেজ। ঈদের ছবির খবরাখবর থাকছে এখানে।







গত ঈদুল ফিতরে মুক্তি পাওয়া পোড়ামন ২, সুপার হিরো, চিটাগাইঙ্গা পোয়া নোয়াখাইল্যা মাইয়া, পাঙ্কুজামাই ছবি দেশের বিভিন্ন প্রেক্ষাগৃহে চলছে এখনো। সামনে ঈদুল আজহা। এরই মধ্যে ঈদে ছবি মুক্তির ঢেউ ছড়িয়েছে সিনেমাপাড়া খ্যাত ঢাকার কাকরাইল থেকে দেশের বিভিন্ন প্রান্তের প্রেক্ষাগৃহগুলোতে। ঈদের ছবির ছোট-বড় নানা রঙের পোস্টার, ব্যানার ও বিলবোর্ডে ছেয়ে গেছে কাকরাইলের প্রযোজনা প্রতিষ্ঠানসহ বিভিন্ন জায়গার নির্ধারিত প্রেক্ষাগৃহগুলো। ঈদের ছবি ঘিরে প্রেক্ষাগৃহের মালিক, কর্মচারী, কর্মকর্তা, বুকিং এজেন্টদের আনাগোনা বেড়েছে কাকরাইলের সিনেমা প্রযোজনা প্রতিষ্ঠানের অফিসগুলোতে। কত টাকায় এমজি (মিনিমাম গ্যারান্টি), কত কমিশনে ছবি প্রেক্ষাগৃহে উঠবে তা নিয়ে হলের মালিক ও প্রযোজকদের মধ্যে চলছে দর-কষাকষি।Eprothomalo







সাত থেকে পাঁচে?

ঈদুল ফিতরের পরপরই ঈদুল আজহার ছবির হিসাব-নিকাশ শুরু হয়েছিল চলচ্চিত্রপাড়ায়। সপ্তাহ দুয়েক আগেও শোনা গিয়েছিল আগামী ঈদে সাতটি ছবি মুক্তি পাবে। এ তালিকায় ছিল—ক্যাপ্টেন খান, বেপরোয়া, মনে রেখ, জান্নাত, আমার প্রেম আমার প্রিয়া, নোলক ও মাতাল। কিন্তু এরই মধ্যে নোলক ঈদের তালিকা থেকে সরে গেছে। মাতাল ঈদে মুক্তি পাবে কি না তা নিয়ে এখনো দ্বিধাদ্বন্দ্বে আছেন ছবির পরিচালক শাহিন সুমন। তিনি বলেন, এখনো ছবির একটি গান শুটিং করতে বাকি। তা ছাড়া ছবির আবহ সংগীতের কাজ চলছে।







শাকিব ও বুবলীর এক

শাকিবের দুইয়ের বেশি ছবি থাকলেও গত দুই বছরে ঈদে বুবলীর দুটি করে ছবি মুক্তি পায়। কিন্তু এবারের ঈদে এই দুই তারকার একটি করে ছবি মুক্তি পাচ্ছে। নোলক তালিকা থেকে সরে যাওয়ায় শাকিব খানের প্রতিদ্বন্দ্বী শাকিব খান নয়, অন্য তারকারা। ক্যাপ্টেন খান ছবির সঙ্গে পাল্লা দেওয়ার মতো বড় তারকার কোনো ছবি এই ঈদে মুক্তির তালিকায় নেই। ঈদে একটি ছবি মুক্তি পেলেও বেশ খুশি শাকিব ও বুবলী।







শাকিব খান বলেন, ‘দুটি ছবি থাকলে ভালো হতো। ঈদের সময় মানুষ হলে হলে ঘুরে সিনেমা দেখেন। তখন সিনেমার বাড়তি দর্শক তৈরি হয়। মোটকথা সিনেমার বাজার বাড়ে। এ ধরনের উৎসবে একজন অভিনেতার কয়েকটি ছবি থাকলে তাঁর নিজের জন্য যেমন ভালো, প্রযোজকেরাও লাভবান হন।’







মাহি অভিনীত অগ্নি ২ মুক্তি পায় ২০১৫ সালের ঈদে। এর পর আর ঈদের ছবিতে দেখা যায়নি এই তারকাকে। এবারের ঈদে একসঙ্গে দুটি ছবি মুক্তি পাওয়ার কথা রয়েছে এই নায়িকার। জান্নাত ও মনে রেখ ছবির নায়িকা মাহি। দীর্ঘদিন পর ঈদে মাহির ছবি দুটিতে তাঁর ভক্তদের আলাদা আগ্রহ থাকবে। মাহি নিজেও ছবি দুটি নিয়ে আশাবাদী। তিনি বলেন, ‘অনেক দিন হলো ঈদে আমার কোনো ছবি নেই। এবার দুটি ছবি মুক্তি পাচ্ছে। বিষয়টি আমার জন্য আনন্দের। ছবি দুটি আমার ভক্ত-দর্শকেরও ঈদে বাড়তি আনন্দ দেবে বলে মনে করছি।’ জান্নাত ছবিতে মাহির বিপরীতে আছেন সায়মন সাদিক এবং মনে রেখ ছবিতে কলকাতার বনি সেনগুপ্ত।







ঈদের আর বেশি দিন বাকি না থাকলেও ইউটিউবে এখনো ঈদের আমেজ লাগেনি। ঈদে মুক্তি চূড়ান্ত ছবিগুলোর মধ্যে মাত্র আমার প্রেম আমার প্রিয়া ছবির ‘টেরাম টেরাম’একটি গান ইউটিউবে ছাড়া হয়েছে। এ ছাড়া অন্য কোনো ছবির টিজার, ট্রেলার ইউটিউবে এখনো দেখা যাচ্ছে না। খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, শিগগিরই ক্যাপ্টেন খান, মনে রেখ ও বেপরোয়া ছবির গান ও টিজার প্রকাশের কথা বলেছে ছবির প্রযোজনা প্রতিষ্ঠানগুলো। বেপরোয়া ছবির প্রযোজক আবদুল আজিজ বলেন, ‘ছাত্র আন্দোলনের এই অস্থির অবস্থা কাটলেই টিজার ও গানগুলো একে একে ইউটিউবে ছাড়ব।’







ঢাকার চলচ্চিত্রে বেশ কয়েক বছর ধরেই শাকিব খানের ছবি মুক্তি মানেই হলো মালিক, পরিবেশক ও দর্শকদের বাড়তি আগ্রহ তৈরি করে। ঈদের সময় আগ্রহ আরও বাড়ে। আগেভাগেই শাকিব খান অভিনীত ছবির ঘরে হলের মালিক, কর্মকর্তা, পরিবেশক ও এজেন্টদের আনাগোনা শুরু হয়। শুরু হয় অগ্রিম হল বুকিং। এই ঈদেও ব্যতিক্রম ঘটছে না। এরই মধ্যে ক্যাপ্টেন খান ছবির প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান শাপলা মিডিয়ার কার্যালয়ে ভিড় শুরু হয়ে গেছে। সর্বাধিক হলে মুক্তি পেতে পারে ছবিটি। জাজ মাল্টিমিডিয়া প্রযোজিত বেপরোয়া ছবিরও বুকিং শুরু হয়েছে। জাজ জানিয়েছে, প্রায় ৮০টি হলে বেপরোয়া মুক্তির পরিকল্পনা আছে তাদের।

বাকি ছবিগুলোর বুকিং এখনো শুরু না হলেও মনে রেখ ৪০টি, জান্নাত ৩৫টি আমার প্রেম আমার প্রিয়া ৩০টি হলে মুক্তির পরিকল্পনা রয়েছে বলে জানিয়েছেন প্রযোজনা প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তারা।