জ্বরে কাহিল, তবু চলছে শুটিং

0
37

দুই দিন ধরে গায়ে জ্বর। অবস্থা কাহিল। কিন্তু বুঝতে দিচ্ছেন না শুটিং ইউনিটের কাউকেই। আপন মনে শুটিং করেই যাচ্ছেন। কারণ, সামনে ঈদ। এই ঈদে দর্শকের কাছে ছবিটি নিয়ে হাজির হবেন রোশান। তাই সবকিছুকে উপেক্ষা করে কক্সবাজারে জ্বর গায়ে ‘বেপরোয়া’ ছবির শুটিং করে চলছেন তিনি।







মালেক আফসারী পরিচালিত ছবি ‘রক্ত’ দিয়ে বাংলাদেশি চলচ্চিত্রে অভিষেক হয় ইনডিপেনডেন্ট বিশ্ববিদ্যালয়ের মার্কেটিং বিভাগের শিক্ষার্থী জিয়াউল রোশানের। এরপর শামীম আহমেদের ‘ধ্যাততেরিকি’ ও কমলেশ্বর মুখোপাধ্যায়ের ‘ককপিট’ নামের আরও দুটি ছবিতে অভিনয় করেন তিনি।

শারীরিক গঠন, চেহারা আর নাচে পারদর্শিতার কারণে শুরু থেকেই রোশানকে নিয়ে ঢালিউডে আলোচনা ছিল। ‘বেপরোয়া’ রোশানের জীবনের স্বপ্নের একটি ছবি। এই ছবিটির সফলতা তাঁকে পৌঁছে দিতে পারে অন্য এক উচ্চতায়—তেমনটাই মনে করছেন রোশান নিজেও।Eprothomalo







রোশান বলেন, ‘এটি আমার সিনেমা। ছবির গল্পটাই আমাকে ঘিরে। একজন নায়কের এমন একটা ছবি নিজেকে প্রমাণ করার জন্য যথেষ্ট। আমি সেই সুযোগ পেয়েছি। আশা করি, ছবিটি দেখার পর সবার ভালো লাগবে।’

বেপরোয়া ছবিটি ঈদ উৎসবে মুক্তি পাবে। গানের শুটিং শেষ হলেই সেন্সর ছাড়পত্রের জন্য জমা দেওয়া হবে। শুরুতে গানের শুটিং ব্যাংককে করার থাকলেও সিদ্ধান্ত বদল করে ইউনিট। বিশ্বের দীর্ঘতম সমুদ্রসৈকত কক্সবাজারে এখন চলছে শুটিং। আগামী পাঁচ দিন সেখানে থাকবেন নায়ক রোশান, নায়িকা ববিসহ ইউনিটের অন্যরা।

এদিকে গানের শুটিংয়ের ফাঁকে গতকাল বুধবার সন্ধ্যায় প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান জাজ মাল্টিমিডিয়ার ইউটিউবে প্রকাশ করা হয়েছে ‘বেপরোয়া’ ছবির টিজার।







রোশান বলেন, ‘১০২ ডিগ্রি জ্বর নিয়ে গতকাল সারা দিন গানের শুটিং করেছি। ছবিটি নিয়ে আমি রীতিমতো রোমাঞ্চিত। জ্বর ও শুটিংয়ের কারণে টিজার দেখে যাঁরা প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন, তাঁদের অনেকেরই উত্তর দিতে পারিনি। এটা আমার জীবনের সবচেয়ে খারাপ অভিজ্ঞতা। টিজার দেখার পর আপনাদের সবার কাছ থেকে পাওয়া ইতিবাচক প্রতিক্রিয়ায় আমি খুবই আনন্দিত, কৃতজ্ঞ। সবাইকে আমার পাশে থাকার জন্য অনুরোধ জানাচ্ছি। পাশাপাশি প্রেক্ষাগৃহে গিয়ে বাংলাদেশের ছবি দেখার আহ্বান জানাই।’







‘বেপরোয়া’ ছবিতে রোশানকে ইতিবাচক ও নেতিবাচক—দুই চরিত্রেই দেখা যাবে। তিনি বলেন, ‘এই ছবির ট্যাগ লাইন হচ্ছে ফ্যামিলি ফার্স্ট। তার মানে, ছবিতে শুরুতে দেখা যাবে ছেলেটা তার পরিবারের প্রতি সবচেয়ে আন্তরিক। একসময় নম্রভদ্র এই ছেলে বেপরোয়া হয়ে যায়। বাকিটা সবাইকে সিনেমা হলে গিয়ে দেখার অনুরোধ করব।’







অ্যাকশন-রোমান্স ঘরানার ‘বেপরোয়া’ ছবির পরিচালক কলকাতার রাজা চন্দ। এর আগে তিনি বাংলাদেশ-ভারত যৌথ প্রযোজনায় ‘ব্ল্যাক’ ছবিটি পরিচালনা করেন। এটি তাঁর একক পরিচালনায় নির্মিত প্রথম বাংলাদেশি চলচ্চিত্র।

গত বছর ৫ অক্টোবর ঢাকার এফডিসিতে ‘বেপরোয়া’ ছবির শুটিং শুরু হয়। রোশান ও ববি ছাড়া এই ছবিতে আরও অভিনয় করেছেন কাজী হায়াৎ, তারিক আনাম খান, নিমা রহমান, শহিদুল আলম সাচ্চু, সাদেক বাচ্চু, রেবেকা, নানা শাহ, শিবা সানু প্রমুখ।