স্বামী-স্ত্রী আর তাদের তিন মাস বয়সের একটি বাচ্চা রাতে বিছানায় ঘুমাচ্ছে

0
286

স্বামী-স্ত্রী আর তাদের-

স্বামী-স্ত্রী আর তাদের তিন মাস বয়সের একটি

বাচ্চা রাতে বিছানায় ঘুমাচ্ছে।

:হটাৎ

:তিন মাসের বাচ্চা রাত তিনটার সময় জোরে

জোরে কান্না করতে লাগলো।

:বাচ্চার কান্না শুনে মা বাবা দুজনেরই

ঘুম ভেঙ্গে গেলো।
,,

স্বামী বললেন,

ওকে একটু থামাও…..!

আর মা বাচ্চাটিকে বুকে জরিয়ে

নিয়ে এদিক-ওদিক হাঁটতে লাগলেন।

:

কিছুক্ষন পর ,

বাচ্চাটির বাবা বিছানা থেকে

উঠে ঘর থেকে

বের হয়ে গেলেন।

:

কিছুক্ষন পর বাচ্চাটির বাবা ঘরে

ফিরে এলেন

আর

বাচ্চাটির মা তাকে জিজ্ঞাস

করলেন,

কোথায় গেছিলে ?

:

তিনি বললেন ,

:

মায়ের কবরটা দেখতে

গিয়েছিলাম।
:

বাচ্চাটির মা জিজ্ঞেস করলেন,

এত রাতে কেন ?

সে উত্তর দিল ,

আমাদের বাচ্চাটি যখন

কাঁদতেছিলো

তখন আমার খুব বিরক্ত লাগছিল।কিন্তূ

তুমি ওকে কাঁধে নিয়ে আদর করতে

করতে

হাটতেছ।

কারন,

তুমি তার মা।

:

তখনি মনে পরে গেলো।

হয়তো , আমি যখন ছোট ছিলাম

তখন

আমার মা ও আমাকে এভাবেই যত্ন

করেছিলেন।

তাই মাকে দেখতে গেছিলাম।

আজ আমি মায়ের যত্নে এত বড়

হয়েছি। কিন্তু

জানি না মা আমার সেখানে

কতটুকু যত্নে

আছেন।

পৃথিবীতে মা একমাত্র আপন।

হে আল্লাহ্ আপনি আমাদের মা

বাবার

সেবা করার তৌফিক দিন।

যাদের মা বাবা পৃথিবী তে নেই

তাঁদের কে জান্নাত বাসি করুন।(আমিন)

যে নয় ধরনের মেয়েদের সঙ্গে কখনই মিশবেন না

পুরুষদের মধ্যে এমন কিছু মানুষ রয়েছে যাদের এড়িয়ে চলাটাই নারীর জন্য নিরাপদ তেমনি নারীদের মধ্যেও এমন কেউ কেউ রয়েছে যাদের সঙ্গে সম্পর্কে না জড়ানোটাই পুরুষদের জন্য মঙ্গলজনক।

আবেগ সামলাতে না পেরে এসব নারীদের সঙ্গে মিশে এমন ভুল কিছু করে ফেলতে পারেন, যা আপনাকে বিপদের দরজায় নিয়ে যেতে পারে। টক-ঝাল-মিষ্টির সম্পর্কটা আপনার জন্য হয়ে যেতে পারে তিতা। আমাদের আজকের আয়োজন ওইসব নারীদের নিয়ে। যাদের সঙ্গে দীর্ঘ সম্পর্কে যাওয়ার আগে বারবার ভাবা উচিৎ।

কর্তৃত্ব পরায়ণঃ এ ধরনের নারীরা সব ব্যাপারেই পুরুষের ওপর আধিপত্য বিস্তার করতে চায়। নিজেকে সবজান্তা মনে করে। আর এরা সবসময় নিজেকেই বড় করে দেখাতে চায়। যেমন আপনার খাওয়ার জায়গা বা কী সিনেমা দেখবেন তা পর্যন্ত এরা ঠিক করে দিতে চা্য়। এদের সঙ্গে থাকার সময় নিজের কোনো অস্তিত্ব খুঁজে পাওয়া যাবে না। আপনার জীবনটাকে ঝুলিয়ে দিবে।

টাকাই যাদের প্রধান অথচ নিজে কিপ্টেঃ এটাকে আপনি দিন-দুপুরে ডাকাতি করার স্বভাব মনে করতে পারেন। এ ধরনের নারীদের চাহিদার কোনো শেষ নেই। এদের সঙ্গে আপনি চলাফেরা করলে আপনাকে ফতুর করে ছাড়বে। এরা নিজের আত্ম-মর্যাদা রক্ষা করতে একটুও আর্থিক সহায়তা করবে না।

আপনার বন্ধুর প্রতি দুর্বলঃ এই ধরনের নারীদের কোনও পুরুষই চায় না। আপনি যদি মনে করেন, শহরের সবচেয়ে সুন্দরী নারীর সঙ্গে ডেটিং করছেন এবং সে যা বলবে তাই শুনবেন তাহলে আপনি তাকে হারাবেন। সে আসলে আপনার কোনো বন্ধুকে পছন্দ করে এবং তাকে পাওয়ার জন্যই সে আপনাকে ব্যবহার করছে।

সুন্দরীঃ এ ধরনের নারীদের প্রেমে পড়া মানেই আপনি হেরেছেন! কথাটা শুনে অপরাধবোধে ভুগবেন না। বাস্তবতা হল, আপনি যদি কলেজের সেরা ‘সুন্দরীদের’ কারও সঙ্গে ডেটিংয়ে যান তাহলে আপনি নিশ্চয়ই হারবেন।

আপনি হয়তো এরকম মেয়ের সঙ্গে ডেটিং করতে পেরে গর্ববোধ করতে পারেন। বন্ধুমহলে আপনার বেশ নাম-ঢাক হবে,বাহবা পেতে পারেন। কিন্তু তার সঙ্গে ঘোরায় আপনার কোনো মূল্য নেই। আপনি শুধু তার সৌন্দর্যের কারনে সবার কাছে পরিচিত। শুধু তার বয়ফ্রেন্ড হিসেবেই আপনি পরিচিতি পাবেন।

অভিযোগ বাক্সঃ আপনার সকল কাজকে সে সবসময় ভুল বলবে। আপনার কোনো কাজের জন্য তার কাছ থেকে প্রশংসা পাবেন না। এর ফলে আপনি আত্মবিশ্বাস ও আত্মসম্মান হারাবেন।

ঈর্ষাকাতরঃ সে আপনার ঘনিষ্ঠ বন্ধুদেরকে ঘৃণা করে। অথচ সে আপনার কাছ থেকে সবধরণের সুযোগ-সুবিধা চায়। আপনার সকল মনোযোগ তার ওপর রাখতে চায়। সে যে কোনো উপায়ে আপনাদের বন্ধুত্ব ভাঙ্গার চেষ্টা করবে। সে আপনাকে আপনার বন্ধু-বান্ধবদের সঙ্গে খেতে, খেলতে, সিনেমা দেখতে দিবে না।

সন্দেহপ্রবণঃ আপনার মোবাইলে কোনও মেয়ে বন্ধুর ফোন আসলেই ঝগড়া বাঁধিয়ে দেবে সে। সে সবসময় আপনার কল রেকর্ড ও টেক্সট ম্যাসেজ ধারন করে নিশ্চিৎ হবে আপনি অন্য কোনো নারীর সঙ্গে যোগাযোগ করছেন কি না। এমনকি সে নিজের ঘনিষ্ঠ বন্ধুকেও আপনার সঙ্গে পরিচয় করিয়ে দিবে না। কারন নিরাপত্তাহীনতায় ভোগে সে।

অতি আবেগীঃ প্রেমের সম্পর্ক এক মাস না যেতেই আপনাকে বিয়ের জন্য পীড়ন শুরু করবে। আপনি হয়তো মনে করবেন আপনি তাকে বুঝে উঠতে পারেন নি। কিন্তু সে এমন ভাব দেখাবে যেন মনে হবে সে আপনাকে যথেষ্টই বুঝে গেছে।

কিন্তু এ বিষয়ে আপনি কি ভাবলেন তা তোয়াক্কা করবে না। সে আপনার প্রতি এতটাই দুর্বল অনুভব করবে যে, আপনার জন্য রোযা রাখা শুরু করবে। আবেগতাড়িত সব জিনিস পাঠাবে। আসলে সে আপনাকে আবেগের ফাদেঁ ফেলেছে। আর একবার এ ফাদেঁ পড়ে গেলে এখান থেকে বের হওয়ার কোনো উপায় থাকে না।

প্রতারকঃ অনেক মেয়েই আছে যারা একজনকে ছেড়ে একাধিক ছেলের সঙ্গে প্রেম করে গর্ববোধ করে। এতে তারা কোনো লজ্জা পায় না। বন্ধুদের বোকা বানাতে এটা তারা গোপন রাখে। প্রেমিকা হিসেবে আপনি কি চান এরকম কোনো প্রতারক মেয়ে।