প্রেমের জন্য ঘর ছেড়ে লাশ হল কিশোর-কিশোরী

0
231

প্রেমের জন্য ঘর ছেড়ে- কুড়িগ্রামে দুই কিশোর-কিশোরীর মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। বুধবার (১৯ সেপ্টেম্বর) সদর উপজেলার বিসিক শিল্পনগরীর কাছে নলেয়ার পাড় এলাকায় পরিত্যক্ত সেচ পাম্পের কাছে তাদেরকে পরে থাকতে দেখে পুলিশে খবর দেয় এলাকাবাসী। প্রাথমিকভাবে এটি হত্যাকাণ্ড বলে ধারণা করছে পুলিশ।

পুলিশ সূত্র জানায়, নিহতের মধ্যে সেলিনা আক্তার (১৪) আমিন উদ্দিন দ্বি-মুখী দাখিল মাদ্রসার অষ্টম শ্রেণির শিক্ষার্থী এবং কুড়িগ্রাম পৌর এলাকার ডাকুয়াপাড়া গ্রামের জাবেদ আলীর মেয়ে।

অপর কিশোর জাহাঙ্গীর আলম (১৬) কুড়িগ্রাম টেকনিক্যাল স্কুল এন্ড কলেজের নবম শ্রেণির ছাত্র এবং পাশ্ববর্তী পূর্ব কল্যাণ গ্রামের সৈয়দ আলীর পূত্র। সদর থানা পুলিশ মরদেহ দুটি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য কুড়িগ্রাম মর্গে প্রেরণ করে। মরদেহ দুটি’র গলায় ওড়না পেঁচানো ছিল।

স্থানীয়রা জানান, নিহত দু’জনকে সাইকেলে করে গতকাল ঘুড়তে দেখেছে অনেকেই। স্থানীয়দের ধারণা প্রেমের সম্পর্ক থেকে বাড়ি থেকে পালিয়ে যাবার উদ্দেশ্যেই তারা বের হয়েছিল।

ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে কুড়িগ্রামের পুলিশ সুপার মেহেদুল করিম জানান, সুরতহাল রির্পোট অনুযায়ী প্রাথমিকভাবে হত্যাকাণ্ড বলে ধারণা করা হচ্ছে। তদন্তের পর বিস্তারিত জানা যাবে।

কুমিল্লায় প্রবাসীর স্ত্রীকে ধর্ষণ, সন্তান প্রসব! ধর্ষক আটক

কুমিল্লার নাঙ্গলকোটে এক প্রবাসীর স্ত্রীকে ধর্ষণ ও এক পূত্র সন্তান প্রসব করেছ ওই ধর্ষিতা এ ঘটনায় মামলা দায়ের করলে পুলিশ ধর্ষক আবুল কাশেম (২৪) কে আটক করে।

কুমিল্লায় প্রবাসীর স্ত্রীকে ধর্ষণ, সন্তান প্রসব! ধর্ষক আটক

মঙ্গলবার (১৮ সেপ্টেম্বর) আদালতের মাধ্যমে ধর্ষককে জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে। কাশেম উপজেলার বটতলি ইউনিয়নের কাশিপুর গ্রামের মৃত.ইউনুছের ছেলে ।

থানা ও মামলা সূত্রে জানা যায়, ধর্ষিতার স্বামী বিদেশ থাকার সুবাধে গত বছরের ১০ অক্টোবর গভীর রাতে প্রকৃতির ডাকে সাড়া দিতে বাহিরে গেলে ঘরে ডুকে দেখে আবুল কাশেম (২৪)। এ সময় ধর্ষিতার মুখ চেপে ধরে জোর পূর্বক ধর্ষণ করে। পরে বিভিন্ন সময় তাকে অনেক বার ধর্ষণ করে।

সে গর্ভবতী হয়ে পড়ে, ইতিমধ্যে তার স্বামী বিদেশ থেকে বাড়ীতে এসে তার গর্ভবতী হওয়ার বিষয়ে জিজ্ঞেস করলে, সে তার স্বামীকে ঘটনাটি খুলে বলে। গত ১৩ সেপ্টেম্বর সে একটি পূত্র সন্তান প্রসব করে।

এ ঘটনায় ১৮ সেপ্টেম্বর ধর্ষিতা বাদী হয়ে মামলা করলে পুলিশ বটতলি এলাকায় অভিযান চালিয়ে ধর্ষক আবুল কাশেম কে আটক করে জেল হাজতে প্রেরণ করে।

এ বিষয়ে নাঙ্গলকোট থানার ওসি নজরুল ইসলাম পিপি এম জানান, ধর্ষিতা বাদী হয়ে মামলা করলে তাকে আটক করে আদালতে প্রেরণ করি।

এক প্রবাসীকে কুপিয়ে হত্যা

কুমিল্লায় পূর্ব শত্রুতার জের ধরে মো. শহিদ (৫৫) নামে এক প্রবাসীকে ব্যক্তিকে কুপিয়ে হত্যা করেছে প্রতিপক্ষের লোকজন। মঙ্গলবার রাত ৮টার দিকে সদর উপজেলার জগন্নাথপুর ইউনিয়নের জোড়া মেহের গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। নিহত শহিদ ওই গ্রামের মৃত মমতাজ মিয়ার পুত্র।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, দীর্ঘদিন ধরে পার্শ্ববর্তী বাড়ির কোমর আলীর পরিবারের সাথে শহিদের পরিবারের শত্রুতা চলছিলো। মঙ্গলবার রাত ৮টার দিকে শহিদকে একা পেয়ে কোমর আলীর পুত্র রিপন (২২) ধারালো অস্ত্র দিয়ে তাকে এলোপাথারী কোপাতে থাকে।

এসময় তার আর্তচিৎকারে স্থানীয়রা এগিয়ে এসে গুরুতর আহত অবস্থায় শহিদকে উদ্ধার করে কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ (কুমেক) হাসপাতালে নিয়ে আসলে চিকিৎসকরা তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

বিষয়টি নিশ্চিত করে কুমিল্লা কোতয়ালী মডেল থানার ওসি আবু ছালাম মিয়া জানান, খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছেছে। শহীদের মরদেহ কুমেক হাসপাতালের মর্গে রাখা হয়েছে। ময়না তদন্ত শেষে বিস্তারিত জানা যাবে।

অভিযুক্ত রিপনকে গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে বলেও জানান তিনি।

প্রবাসীকে কুপিয়ে হত্যার কারন জানাগেছে

কুমিল্লায় মাদক সেবন ও বিক্রয় কাজে বাধা দেওয়ার কারনেই মোঃ শহিদ উল্লাহ (৫২) নামে এক প্রবাসীকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে হত্যা করা হয়েছে। এ ঘটনাটি রিপন (২৩) নামে এক মাদক ব্যবসায়ী ঘটিয়েছে বলে জানা গেছে।

মঙ্গলবার রাত ৮টায় কুমিল্লার আদর্শ সদর উপজেলার জগন্নাথপুর ইউনিয়নের জোড়া মেহের গ্রামের মসজিদের সাথে হত্যার ঘটনাটি ঘটে।

নিহত মোঃ শহিদ উল্লাহ জগন্নাথপুর ইউনিয়নের জোড়া মেহের গ্রামের মনতাজ মিয়ার ছেলে। অভিযুক্ত ঘাতক রিপন একই গ্রামের কমল আলীর ছেলে। রিপন ওই এলাকায় মাদকের সেবক ও বিক্রেতা হিসেবে পরিচিত।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, মঙ্গলবার রাত ৮টায় এশার নামাজের সময় মোঃ শহিদ উল্লাহ বাড়ি থেকে মসজিদের দিকে আসার পথে হঠাৎ ঘাতক রিপন ধারালো অস্ত্র দিয়ে আঘাত করতে থাকে।

চিৎকার শুনে স্থানীয় দৌড়ে যাওয়ার আগেই মোঃ শহিদ উল্লাহ ঘটনাস্থলে নিহত হয়। উদ্ধার করে কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হলে চিকিৎসক মোঃ শহিদ উল্লাহর মৃত্যু নিশ্চিত করেন।

এর আগের কিছুদিন পূর্বে প্রতিবেশি হিসেবে প্রবাসী মোঃ শহিদ উল্লাহ ঘাতক রিপনকে মাদক সেবন ও বিক্রয়ের কাজে বাধা দেয়। এতে করে রিপনের সাথে মোঃ শহিদ উল্লাহর বিরোধ সৃষ্টি হয়। ওই ঘটনাকে কেন্দ্র করে হত্যার ঘনাটি ঘটেছে বলে স্থানীয়দের ধারণা।

কুমিল্লার চকবাজার পুলিশ ফাঁড়ির এস আই আবদুল হান্নান ও জামাল বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, হত্যাকান্ডের ঘটনাস্থলে গিয়ে জানতে পেরেছি রিপন নামে এক যুবক ছুরিকাঘাত করেছে। নিহত প্রাবাসী মোঃ শহিদ উল্লাহর মুখে, বুকে ও পিঠে একাধিক অস্ত্রের আঘাতের চিহ্ন রয়েছে।

স্থানীয়রা মরদেহ উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে এসেছেন। মরদেহ কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে রয়েছে। বুধবার ময়নাতদন্ত করা হবে।