শেষমূহুর্তে গিয়ে সিরিজ জেতা হল না বাংলাদেশের

0
29

কাটুনায়াকেতে অনুষ্ঠিত সিরিজের শেষ ম্যাচটিতে টসে জিতে শুরুতে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন বাংলাদেশ অধিনায়ক তৌহিদ হৃদয়। পরবর্তীতে ব্যাটিং করতে নেমে বাংলাদেশের বোলারদের নিয়ন্ত্রিত বোলিংয়ে নির্ধারিত ৫০ ওভারে মাত্র ২০৭ রান সংগ্রহ করতে সক্ষম হয় স্বাগতিকরা।

লঙ্কানদের পক্ষে সর্বোচ্চ ৮৩ রান করেছেন ওপেনার কামিল মিশারা। এছাড়াও সোনাল দিনুশা ২৮ এবং রাভিন্দু রাশানথা ২২ রান করেন। বাকি ব্যাটসম্যানদের আর কেউই তেমন উল্লেখযোগ্য রান করতে পারেননি। বাংলাদেশের হয়ে এদিন দারুণ বোলিং করেছেন ১৮ বছর বয়সী সাজিদ হোসেন।

১০ ওভারে মাত্র ৩৯ রান খরচায় ২টি উইকেট শিকার করেছেন তিনি। অপরদিকে অধিনায়ক তৌহিদ হৃদয় ৮ ওভার হাত ঘুরিয়ে ৩১ রানে ১ উইকেট নিয়েছেন। এছাড়াও ৫০ রানে ১টি উইকেট পেয়েছেন শরিফুল ইসলাম।

লঙ্কানদের ছুঁড়ে দেয়া ২০৬ রানের লক্ষ্যে খেলতে নেমে অবশ্য ভাগ্য সহায় হয়নি ক্ষুদে টাইগারদের। কেননা খেলার মাঝামাঝি সময়ে বৃষ্টি হানা দিলে ম্যাচের পরিধি কমিয়ে আনা ৩৭ ওভারে। আর সেক্ষেত্রে বাংলাদেশের সামনে লক্ষ্য নির্ধারিত হয় ১৮৪ রানের।

এরপর সেই লক্ষ্যে ব্যাটিংয়ে নামার পর ৪ উইকেট হারিয়ে ২১ ওভারে ৮০ রান তুলতে সক্ষম হয়েছিল তৌহিদ বাহিনী। কিন্তু পরবর্তী আবারও বৃষ্টি শুরু হলে খেলা বন্ধ ঘোষণা করা হয় এবং বৃষ্টি আইনে শ্রীলঙ্কাকে ১৯ রানে জয়ী ঘোষণা করা হয়।

এর আগে পাঁচ ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজের প্রথমটি পরিত্যক্ত হয়েছিল। এরপর দ্বিতীয়টিতে বৃষ্টি আইনে ৮ রানের জয় পেয়েছিল বাংলাদেশ। কিন্তু তৃতীয় ম্যাচে এসে লঙ্কানদের কাচে ৮ উইকেটের বড় পরাজয় মেনে নিতে হয়েছিল তাদের। এরপর গত ম্যাচটিও বৃষ্টির পেটে যাওয়ায় আজকের ম্যাচটি ছিল সিরিজ নির্ধারণী।