জামাইষষ্ঠী উপলক্ষে যে উপহার মমতার

0
121

আগামী ৩ জুলাই রাজ্য সরকারি কর্মচারীদের বকেয়া মহার্ঘ ভাতা নিয়ে মামলার চূড়ান্ত শুনানি হওয়ার কথা। তার আগে ১৮% মহার্ঘ ভাতার ঘোষণা মুখ্যমন্ত্রীর ‘মাস্টার স্ট্রোক’ বলে মনে করছেন নবান্নের কর্তারা।

জামাইষষ্ঠীর জন্য মঙ্গলবার অর্ধ দিবস ছুটি ঘোষণা করেছিল রাজ্য সরকার। সেই কারণে দুপুর হতেই বাড়ির পথে হাঁটা দিয়েছিলেন সরকারি কর্মীরা। ফাঁকা নবান্নে বিকেলের দিকে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় আগামী বছরের প্রথম দিন থেকে ১৮% মহার্ঘ ভাতা (ডিএ) দেওয়ার কথা ঘোষণা করলেন। সঙ্গে ১০% অন্তর্বর্তিকালীন স্বস্তি (ইন্টারিম রিলিফ)।

আগামী ৩ জুলাই রাজ্য সরকারি কর্মচারীদের বকেয়া মহার্ঘ ভাতা নিয়ে মামলার চূড়ান্ত শুনানি হওয়ার কথা। তার আগে ১৮% মহার্ঘ ভাতার ঘোষণা মুখ্যমন্ত্রীর ‘মাস্টার স্ট্রোক’ বলে মনে করছেন নবান্নের কর্তারা।

মুখ্যমন্ত্রী এদিন বলেন, ‘‘আগের সরকারের নেওয়া ঋণের সুদ গুণেই আমাদের অর্ধেক টাকা চলে যাচ্ছে। তার উপরে রয়েছে সকলের জন্য নিখরচায় স্বাস্থ্য, দু’টাকা কিলোগ্রাম দরে চাল, কন্যাশ্রী ও যুবশ্রীর মতো এক গুচ্ছ প্রকল্প। সেই সব সামলে যতটা পারলাম ডিএ দিলাম।’’ এর জন্য সরকারের বছরে পাঁচ হাজার কোটি টাকা খরচ হবে বলে জানান মমতা।

নবান্নের এক কর্তা জানান, ১৮% বকেয়া মহার্ঘ ভাতা সরাসরি দিচ্ছে সরকার। সঙ্গে ১০% অন্তর্বর্তিকালীন স্বস্তি, মহার্ঘভাতার নিরিখে হিসাব করলে যার পরিমাণ ৭.৫%। সব মিলিয়ে হিসেব যা দাঁড়াচ্ছে তাতে আগামী ১ জানুয়ারি থেকে ২৫% বকেয়া মহার্ঘ ভাতা পাবেন সরকারি কর্মীরা।

কেন্দ্রীয় সরকারি কর্মীদের সপ্তম বেতন কমিশন দু’বছর আগে চালু হয়েছে। এ রাজ্যে ষষ্ঠ বেতন কমিশন তৈরি হয়েছিল ২০১৫-এর নভেম্বরে। কিন্তু এখনও সেই রিপোর্ট জমা পড়েনি। এর মধ্যেই সরকারি কর্মীদের বকেয়া মহার্ঘ ভাতা বাড়তে বাড়তে ৫০% পেরিয়ে গিয়েছিল। ক্ষোভ জমছিল সরকারের অন্দরেই। বিষয়টি নিয়ে উদ্বিগ্ন ছিলেন মুখ্যমন্ত্রী নিজেও।

এদিন তিনি বলেন, ‘‘সরকারি কর্মীদের একটি সভায় কথা দিয়েছিলাম। সেই প্রতিশ্রুতি আমরা রেখেছি।’’
শাসকদলের কর্মী সংগঠনের একাধিক নেতার দাবি, মুখ্যমন্ত্রীর কথা রাখতেই ঘুরিয়ে ২৫% ডিএ ঘোষণা করা হল। যদিও বিরোধীদের দাবি, আগামী ৩ তারিখ কলকাতা হাইকোর্টে ডিএ মামলায় রাজ্যের মুখ পুড়তে পারে এমন আশঙ্কা থেকেই তড়িঘড়ি নবান্নের এই সিদ্ধান্ত।

এক কর্তার কথায়, ‘‘১৮% ডিএ এবং ১০% অন্তর্বর্তিকালীন স্বস্তি পাওয়ার পরে বকেয়া ডিএ-র পরিমাণ থাকবে ১৭%। তা ষষ্ঠ বেতন কমিশন ঘোষণার সময়েই মিটিয়ে দিতে পারবে সরকার।’’

55