মার্কিন কংগ্রেসে নির্বাচিত কে এই দুই মুসলিম নারী?

0
47

মার্কিন কংগ্রেসে নির্বাচিত- মার্কিন সংসদ কংগ্রেসে প্রথমবারের মতো দু’জন মুসলিম নারী জয়ী হয়েছেন। এদের একজন ফিলিস্তিনি বংশোদ্ভূত রাশিদা তালিব এবং অন্যজন সোমালি বংশোদ্ভূত ইলহান ওমর। মঙ্গলবারের ভোটে মিনেসোটা থেকে নির্বাচিত হয়েছেন ইলহান ওমর এবং মিশিগান থেকে জিতেছেন রাশিদা তালিব।

উভয়ই ডেমোক্র্যাটিক পার্টির পক্ষ থেকে প্রার্থী হয়ে কংগ্রেসের নিম্নকক্ষ প্রতিনিধি পরিষদের সদস্য হয়েছেন। সোমালিয়ার গৃহযুদ্ধের সময় ১৪ বছর বয়সে আমেরিকায় পাড়ি জমিয়েছিলেন ওমর ইলহান এবং রাশিদা তালিব ফিলিস্তিনি অভিবাসী দম্পতির সন্তান।

ওমর ইলহান মার্কিন কংগ্রেসের প্রথম মুসলিম নারী শুধু নন, মাথায় স্কার্ফ পরিহিত প্রথম মুসলিম নারীও তিনি। কংগ্রেসের প্রথম মুসলিম পুরুষ সদস্য কেইথ এলিসনের আসনে তিনি জয়লাভ করেছেন।

আরও পড়ুন : মার্কিন কংগ্রেসে দুই মুসলিম নারীর জয়

ওমর ইলহানের শৈশবের চার বছর কাটে কেনিয়ার একটি শরণার্থী শিবিরে। সে সময়ের স্মৃতি মনে করে সম্প্রতি এক সাক্ষাৎকারে ওমর বলেন, আমেরিকায় আসার স্বপ্ন কোনো দিন দেখিনি। শরণার্থী শিবিরে খাবার নিয়ে চিন্তা করে দিন কেটে যেত আমাদের।

রাশিদা তালিবকেও অনেক সংগ্রাম করতে হয়েছে। তার উত্থানের ইতিহাস আরও সমৃদ্ধ। ২০০৮ সালে প্রথম মুসলিম নারী হিসেবে তিনি মিশিগান আইন পরিষদের সদস্য নির্বাচিত হয়েছিলেন। ফিলিস্তিন থেকে আমেরিকায় আসা এক পরিবারের ১৪ সন্তানের মধ্যে তিনি সবার বড়।

নিউ ইয়র্ক টাইমস লিখেছে, এবারের মধ্যবর্তী নির্বাচনে মুসলিম প্রার্থীর সংখ্যা ছিল ১০০ জন। এর আগের নির্বাচনে প্রার্থী হয়েছিলেন ১২ জন। মার্কিন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের বর্ণবিদ্বেষী নীতির কারণে এবারের নির্বাচনের মুসলিম প্রার্থীর সংখ্যা বেড়েছে বলে বিশ্লেষকরা মনে করেন।

রাজবন্দীদের মুক্তির ব্যবস্থা নিতে আইনমন্ত্রীকে নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর: কাদের

সত্যিকারের রাজবন্দীদের মুক্তির ব্যবস্থা নিতে আইনমন্ত্রী আনিসুল হককে নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। বললেন আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের।

বুধবার গণভবনে ঐক্যফ্রন্টের সঙ্গে দ্বিতীয় দফা সংলাপ শেষে সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা বলেন তিনি।

ওবায়দুল কাদের বলেন, নির্বাচনের সময় মন্ত্রী-এমপিরা কোনো ধরনের সরকারি সুযোগ সুবিধা নেবেন না।

আজকের সংলাপে ১৪-দলীয় জোটের প্রতিনিধিদলে যে ১১ জন ছিলেন, তারা হলেন আমির হোসেন আমু, তোফায়েল আহমেদ, শেখ সেলিম, মতিয়া চৌধুরী, ওবায়দুল কাদের, অ্যাডভোকেট আনিসুল হক, অ্যাডভোকেট ইউসুফ হোসেন হুমায়ুন, স ম রেজাউল করিম, হাসানুল হক ইনু ও রাশেদ খান মেনন।

তাদের নেতৃত্বে আছেন প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা।

জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের ১১ সদস্যবিশিষ্ট প্রতিনিধিদলের নেতৃত্ব দিয়েছেন ড. কামাল হোসেন।

প্রতিনিধিদলের অন্য সদস্যরা হলেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, স্থায়ী কমিটির সদস্য খন্দকার মোশাররফ হোসেন ও মওদুদ আহমদ, জাসদের (জেএসডি) সভাপতি আ স ম আব্দুর রব ও সাধারণ সম্পাদক আবদুল মালেক রতন, গণফোরামের নির্বাহী সভাপতি সুব্রত চৌধুরী, সাধারণ সম্পাদক মোস্তফা মহসিন মন্টু, নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না ও এস এম আকরাম এবং সুলতান মোহাম্মদ মনসুর।

‘আমরা চারজন এখনও আছি’

নির্বাচন সামনে রেখে মন্ত্রিসভা পুনর্গঠনের অংশ হিসেবে সরকারের চার টেকনোক্র্যাট মন্ত্রী পদত্যাগপত্র জমা দিলেও প্রধানমন্ত্রী তাদের অফিস চালিয়ে যেতে নির্দেশ দিয়েছেন বলে জানিয়েছেন একজন কর্মকর্তা।

ধর্ম মন্ত্রণালয়ের ওই কর্মকর্তা জানান, ধর্মমন্ত্রী মতিউর রহমান বুধবার সকালে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে দেখা করতে গেলে তাকে এবং পদত্যাগপত্র দেওয়া অন্য তিন মন্ত্রীকে শেখ হাসিনা অফিস চালিয়ে যাওয়ার নির্দেশ দেন।

বুধবার গাড়ির পতাকা নামিয়ে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে দেখা করতে যান ধর্মমন্ত্রী। তিনি প্রধানমন্ত্রীকে জানান, মঙ্গলবার বিকালে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ থেকে ফোন করে তাকে পদত্যাগপত্র জমা দিতে বলা হয়েছিল।

এরপর তিনি সেখানে পদত্যাগপত্র জমা দিয়েছেন। এ কথা শুনে প্রধানমন্ত্রী কিছুটা অসন্তোষ প্রকাশ করে বলেন, এমন তো হওয়ার কথা ছিল না। পদত্যাগপত্র তো সরাসরি আমার কাছে দেওয়ার কথা। আপনি দায়িত্ব চালিয়ে যান।

ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযু‌ক্তিমন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার বুধবার বেলা পৌনে ১২টায় এক ফেসবুক পোস্টে লিখেছেন, আমরা চারজন এখনও আছি।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, পদত্যাগপত্র দাখিল করা মানেই পদত্যাগ করা না। প্রধানমন্ত্রী এখনও পদত্যাগপত্র গ্রহণ করেননি, মানে মন্ত্রীরা তাদের দায়িত্ব পালন করবেন।

প্রধানমন্ত্রী এ বিষয়ে কোনো নির্দেশনা দিয়েছেন কি না জানতে চাইলে জব্বার বলেন, বিষয়টি দেখাশোনা করবে প্রশাসন, তারা এ বিষয়টি নিশ্চত করেছে যে, যেহেতু প্রধানমন্ত্রী নির্দেশ দিয়েছেন তাই পদত্যাগপত্র জমা দিয়েছেন। কিন্তু প্রধানমন্ত্রী এখনও আপনার পদত্যাগপত্র গ্রহণ করেননি ফলে আপনি অফিস করবেন, এটা স্বাভাবিক নিয়ম, আমরা স্বাভাবিক নিয়ম পালন করছি।

একাদশ সংসদ নির্বাচনের তফসিল ঘোষণার আগে প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে বুধবার সন্ধ্যায় মন্ত্রিপরিষদ বিভাগে পদত্যাগপত্র জমা দেন ধর্মমন্ত্রী মতিউর রহমান, প্রবাসী কল্যাণ ও বৈ‌দে‌শিক কর্মসংস্থানমন্ত্রী নুরুল ইসলাম বিএস‌সি, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তিমন্ত্রী ইয়াফেস ওসমান এবং ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযু‌ক্তিমন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার।

দায়িত্ব চালিয়ে যেতে প্রধানমন্ত্রীর কাছ থেকে নির্দেশনা পাওয়ার পর বুধবার দুপুরে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযু‌ক্তি বিভাগ থেকে মন্ত্রী জব্বারের একটি অনুষ্ঠানের আমন্ত্রণপত্র সাংবাদিকদের পাঠানো হয়।

সেখানে বলা হয়, বৃহস্পতিবার বেলা ১১টায় জনতা টাওয়ারে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের উদ্যোগে প্রতিবন্ধীদের জন্য সফটওয়্যার উন্নয়ন বিষয়ক সেমিনারে প্রধান অতিথি থাকবেন মোস্তাফা জব্বার।

মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের একজন কর্মকর্তা বলেন, বিভিন্ন জোট ও রাজনৈতিক দলগুলোর সঙ্গে প্রধানমন্ত্রীর সংলাপে কী সিদ্ধান্ত হয় তার ওপর অনেক কিছু নির্ভর করছে বলেই আমরা ধারণা করছি।

প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনার আলোকে যতক্ষণ পর্যন্ত মন্ত্রীদের অব্যাহতি দিয়ে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ আদেশ জারি না করবে ততক্ষণ পর্যন্ত মন্ত্রীদের দায়িত্ব চালিয়ে যেতে কোনো অসুবিধা নেই।