যদি ব্ল্যাকহেড থাকে এই কাজগুলো করে নিজের ক্ষতি বাড়াবেন না!

0
162

ত্বকে ব্ল্যাকহেড থাকা একইসাথে বিরক্তিকর এবং ভয়ঙ্কর। নিজেকে যতবার আয়নায় দেখবেন ততবার এগুলা আপনাকে প্যারা দিবে এবং আপনি এগুলো দূর করতে চাইবেন। ছেলে মেয়ে সবারই কম বেশি ব্লাকহেড হয় এবং সবাই কিছু কাজ করে এর প্রভাব আরো বাড়িয়ে দেয়। এই সাধারণ ভুলগুলো আমরা প্রায়ই করে থাকি যা আমাদের বন্ধ করতে হবে।

চাপ দিয়ে বের করা!

এতে করে ব্ল্যাকহেডতো কমেই না বরং আশেপাশের ত্বক ক্ষতিগ্রস্ত হয়। তাই এটা পরিহার করুন।

অত্যধিক ঘষামাজা

অনেকেই মনে করেন স্ক্রাবিং বা ঘষা-মাজা করলে ব্ল্যাকহেড কমে। কিন্তু তা তো হয় না বরং ত্বকের নমনীয়তা কমে।

ভুল প্রসাধনী সামগ্রী ব্যবহার

ভুল প্রসাধনী ব্যবহার আপনার ত্বকের স্বাভাবিক ছিদ্রগুলো বন্ধ করে দেয় এগুলো পরিহার করুন।

ব্ল্যাকহেড উপড়ে ফেলার উপকরণ

হ্যা এগুলো সবচেয়ে কার্যকরি কিন্তু অভিজ্ঞ কারো সাহায্য ছাড়া ব্যবহারে ক্ষতি বাড়তে পারে।

ময়লা হাতে ধরা!

ময়লা হাতে কখনই ত্বক স্পর্শ করবেন না, এর ফলে সংক্রমণ আরো বেড়ে যায়। তাই পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন থাকুন।

কিছুই না করা

একটা ভ্রান্ত ধারণা প্রচলিত আছে যে এদের বিরক্ত না করলে এরা নাকি চলে যায়। মোটেও না।

ঝাঁজাল প্রসাধনী

শক্তহাতে দমন করা সবসময় কাজে দেয় না। আপনার নমনীয় ত্বকের জন্য যথাযথ আদ্রতা যোগান দিতে হবে।

ব্যবস্থা না নিয়ে ঢেকে রাখা

মেয়েরা এই ভুলটা বেশি করে থাকে। মেক আপ দিয়ে ঢেকে রাখা অবস্থা আরো খারাপ করে দিবে।

মুখ না ধোয়া

ময়লা এবং তেল আপনার ত্বককে আরো খারাপ করে তুলবে এবং ব্ল্যাকহেড বাড়িয়ে দিবে। তাই নিয়মিত ত্বক পরিষ্কার রাখুন।

আঁশটে প্রসাধনী পরিহার

আঁশটে প্রসাধনী আপনার ক্ষতি আরো বাড়িয়ে তোলে।

ত্বকের সাথে মানানসই প্রসাধনী বেছে নিন!

মাস্ক ব্যবহার করুন

ত্বক পরিষ্কার করার ব্রাশ ব্যবহার করুন